1. admin@aporadjogot.com : admin :
শুক্রবার, ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০৪:০৩ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
সোনারগাঁয়ে জমি দখলে বাঁধা দেয়ায়, জাতীয় পার্টির নেতাকর্মীতের হামলায় জমি মালিক জিলানী আহত সোনারগাঁওয়ে প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতে নির্বাচনী নিজ নৌকা প্রতিকে অগ্নিসংযোগ চাঁদা না দেয়ায় সিএনজি চালককে পিটিয়ে আহত করলেন যুবলীগ নেতা নান্নু সাংবাদিক হত্যার প্রধান আসামি র‌্যাবের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে নিহত মাদক ব্যবসায়ীদের গলার কাঁটা হয়ে উঠেছিলেন মহিউদ্দিন বাবার কোলে গুলিবিদ্ধ শিশু তাসফিয়ার লাশ নিয়ে বিক্ষোভ পুলিশের সামনেই কুপিয়ে হত্যার ভয়াবহ ভিডিও ভাইরাল মুন্সিগঞ্জে ১০ টাকায় ইফতার বাজার অতিরিক্ত ফল খাওয়াও আনতে পারে বিপদ সোনারগাঁওয়ে স্কুলছাত্রকে গলাকেটে হত্যার চেষ্টা করেছে কিশোর গ্যাং, পুলিশের ভূমিকা রহস্যজনক

পুলিশের সামনেই কুপিয়ে হত্যার ভয়াবহ ভিডিও ভাইরাল

  • আপডেট সময় : সোমবার, ১১ এপ্রিল, ২০২২
  • ৬৫ বার পঠিত

অনলাইন ডেস্ক:

শেরপুরের শ্রীবরদী উপজেলার রানিশিমুল ইউনিয়নের হালুয়াহাটি এলাকায় জমি সংক্রান্ত বিরোধের জেরে শেখবর আলী (৪৫) নামে এক কাঠ মিস্ত্রিকে কুপিয়ে হত্যা করে প্রতিপক্ষ। গত ২৩ মার্চ হত্যাকাণ্ডটি। থমথমে পরিবেশ কেটে এলাকা স্বাভাবিক হতে শুরু করেছে। এর মধ্যেই রবিবার (১০ এপ্রিল) ভাইরাল হয় ওই হত্যাকাণ্ডের এক ভিডিও।

ভাইরাল হওয়া ওই ভিডিওতে দেখা যায়, অতর্কিতে রাম দা, দা, গরু জবাই করার ছুরি ও লাঠিসোটা নিয়ে শেখবর আলীর ওপর উপর্যুপরি আঘাত করে জিকো, তার ভাই জজ মিয়া ও সাইফুলসহ অন্যরা। এসময় সামনেই দেখা যায় পুলিশকে। ঘটনার আকস্মিকতায় পুলিশ হতবিহ্বল হয়ে পড়ে। পুলিশের প্রতি তেড়ে আসার ঘটনা ভিডিওতে দেখা যায়। যদিও এর আগেই এই হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় মামলা হলে ছয়জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ-র‍্যাব। তাদের মধ্যে দুজন আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দিও দিয়েছেন।
নিহতের পরিবার এবং মামলা সূত্রে জানা যায়, শেখবর আলী হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় তার ছোট ভাই মাহফুজ বাদী হয়ে ২৪ জনের নাম উল্লেখ করে এবং অজ্ঞাতনামা আরো ১৫ জনকে আসামি করে মামলা দায়ের করেছেন। ঘটনার দিন তিনজন এবং পরবর্তীতে প্রধান আসামি জিকোসহ ৬ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তবে পুলিশের সামনেই হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটলেও সেবিষয়ে মামলার এজাহারে কিছুই উল্লেখ নেই বলে জানা গেছে। মামলায় শ্রীবরদী থানা পুলিশ সেটি উল্লেখ করতে দেয়নি বলে অভিযোগ বাদীপক্ষের।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, দীর্ঘদিন প্রতিবেশী জাকির হোসেন জিকোর সঙ্গে শেখবর আলীর জমি সংক্রান্ত বিরোধ চলছিল। এরই জেরে ২২ মার্চ প্রতিপক্ষ জিকোসহ কয়েকজনের বিরুদ্ধে থানায় সাধারণ ডায়েরি করেন শেখবর আলী। ঘটনা তদন্তে পরদিন ২৩ মার্চ বিকালে ঘটনাস্থলে যায় শ্রীবরদীর থানা পুলিশের এসআই ওয়ারেছসহ কয়েকজন পুলিশ সদস্য। এ সময় জিকোসহ ৪-৫ জন অতর্কিতভাবে ধারালো দা, রাম দা, ছুড়ি ও লাঠিসোটা নিয়ে শেখবর আলীর ওপর হামলা করলে ঘটনাস্থলেই শেখবর আলী মারা যান। এ ঘটনায় ওই দিন অভিযান চালিয়ে জিকোর স্ত্রীসহ তিনজনকে গ্রেফতার করে থানা পুলিশ। পরদিন বৃহস্পতিবার রাতে জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সভাপতি মিজানুর রহমান রাজাকে গ্রেফতার করে জেলা গোয়েন্দা পুলিশ। ঘটনার ছায়া তদন্তে নেমে একই দিন শ্রীবরদীর বালিজুড়ি এলাকার গহীন অরণ্য থেকে মামলার প্রধান আসামি জিকোকে গ্রেফতার করে র‌্যাব-১৪ জামালপুর ক্যাম্পের সিপিসি-১ ইউনিট। এনিয়ে ওই মামলায় মোট ৬ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

স্থানীয় সূত্রগুলো জানায়, ইতোপূর্বে জাকির হোসেন জিকোর ওপর প্রতিপক্ষরা হামলা করলে তিনি গুরুতর আহত হন এবং মৃত্যুর মুখ থেকে বেঁচে যান। কিন্তু তখন জিকো কিংবা পরিবারের পক্ষ থেকে কোন মামলা করা হয়নি। ওই ঘটনার পর পরই শেখবর আলী ভিটেমাটি ছেড়ে নিরুদ্দেশ হন। কোনো মামলা না হলেও জিকো সুস্থ হয়ে বাড়ি ফেরেন এবং তার পরিবার ‘মারের বদলে মার’ দেওয়ার অপেক্ষায় থাকেন। যে কারণে শেখবর আলী বাড়ি ফেরার পরই তার ওপর আক্রমণের ঘটনা ঘটে।

শ্রীবরদী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বিপ্লব কুমার বিশ্বাস জানান, এ হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় প্রধান আসামি জিকো, তার ভাই জজ মিয়া ও সাইফুলসহ মোট ৬ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এরমধ্যে হত্যাকাণ্ডের জড়িতের কথা স্বীকার করে আদালতে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দিয়েছে জিকো ও সাইফুল। এছাড়াও এ ঘটনায় পুলিশের এসআই ওয়ারেস আলীকে পুলিশ লাইনে ক্লোজড করা হয়েছে। এছাড়া এলাকায় নিারপত্তার জন্য পুলিশ মোতায়েন রয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরও খবর
© স্বত্ব সংরক্ষিত © ২০২২ অপরাধ জগত
Theme Customized By BreakingNews